Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

সড়ক আটকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিতদের বিক্ষোভ পথে পথে যানজট জনদুর্ভোগ

আপডেটঃ 12:14 pm | November 27, 2018

বাহাদুর ডেস্ক

সড়ক অবরোধ ও প্রতিবাদ সমাবেশের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করেছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিতদের অনুসারী নেতাকর্মীরা। সিলেট-২, ফরিদপুর-২, জামালপুর-৫, কুড়িগ্রাম-২, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২, ঝালকাঠি-১, নরসিংদী-৩ ও নেত্রকোনা-১ আসনে প্রার্থী বদলের দাবি উঠেছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ১৪ দলের শরিকদের জন্য ছেড়ে দেওয়া আসনে নৌকা প্রতীক চাওয়া হচ্ছে। আবার কোনো কোনো আসনে মনোনীতকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে তার চেয়ে নিজেকে যোগ্য দাবি করে রাস্তায় নেমেছেন কেউ কেউ। কোথাও হয়েছে ঝাড়ূ মিছিল। কোথাও কাফনের কাপড় পরে পছন্দের নেতার জনপ্রিয়তার প্রমাণ দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। এ সব ঘটনায় সড়ক-মহাসড়কে যানজটে পড়ে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ঢাকা-২ :এ আসনে মনোনয়ন না পেয়ে বিক্ষোভ করেছেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদের সমর্থকরা। এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

সিলেট-২ :ওসমানীনগর ও বিশ্বনাথ উপজেলা নিয়ে গঠিত এ আসনে এবার আওয়ামী লীগের যে কাউকে প্রার্থী করার দাবিতে গতকাল সোমবার তিন ঘণ্টা সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের প্রায় ২৮ কিলোমিটার এলাকা অবরোধ করেন দলটির নেতাকর্মীরা। এখানকার বর্তমান এমপি জাপার ইয়াহ্‌ইয়া চৌধুরী। তবে এবার আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন চেয়েছিলেন আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী ও সাবেক সাংসদ শফিকুর রহমান চৌধুরীসহ পাঁচজন। গত রোববার ঘোষিত প্রার্থী তালিকায় আসনটি খালি রাখা হয়েছে। এবারও এটি জাপাকে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে- এমন খবরে ক্ষমতাসীন  দলের নেতাকর্মীরা রাস্তায় নামেন। এ সময় যানজটে ব্যাপক জনদুর্ভোগ দেখা দেয়। ওসমানীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান এবং বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ফারুক মিয়া, যুগ্ম-সম্পাদক আমির আলী চেয়ারম্যান বলেছেন, অবিলম্বে নৌকার প্রার্থী ঘোষণা না করলে আরও বড় কর্মসূচি দেওয়া হবে।

ফরিদপুর-২ :জেলার নগরকান্দা ও সালথার এ আসনে বর্তমান সাংসদ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী। তার বদলে এবার এখানে জকের পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তফা আমীর ফয়সালকে মহাজোটের প্রার্থী করা হচ্ছে- এমন খবরে গতকাল বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠন। নেতাকর্মীরা নগরকান্দায় প্রায় এক ঘণ্টা ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। এ সময় নেতারা বলেন, সাজেদা চৌধুরী জীবিত থাকা অবস্থায় এ আসনে অন্য কাউকে মেনে নেওয়া হবে না।

জামালপুর-৫ :সদর উপজেলার এ আসনে এফবিসিসিআইর পরিচালক রেজাউল করিম রেজনুকে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবিতে কাফনের কাপড় পরে রাস্তায় শুয়ে সড়ক অবরোধ ও পরে বিক্ষোভ করেছেন তার সমর্থকরা। এ কারণে দুই ঘণ্টা শহরে যানবাহন ও দোকানপাট বন্ধ ছিল। এ আসনে যৌথভাবে মনোনয়নের চিঠি দেওয়া হয়েছে মোজাফফর হোসেন ও বর্তমান সাংসদ রেজাউল করিম হীরাকে।

কুড়িগ্রাম-২ :সদর, ফুলবাড়ী ও রাজারহাট উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসন জাপাকে ছেড়ে দেওয়ায় বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ করেন জেলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। তারা জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাফর আলীকে প্রার্থী করার দাবি জানান।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ : জেলার সরাইল-আশুগঞ্জের এ আসনে জাপার প্রার্থীকে বাদ দিয়ে নৌকা প্রতীকে মঈন উদ্দিন মঈনকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় যানজটে দুর্ভোগে পড়ে সাধারণ মানুষ।

ঝালকাঠি-১ :রাজাপুর-কাঁঠালিয়ার এ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান এমপি বজলুল হক হারুনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বিক্ষোভ ও ঝাড়ূ মিছিল করেছেন দলটির একাংশের নেতাকর্মীরা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে অন্তত পাঁচজন আহত হন। হারুনের বদলে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা মনিরুজ্জামনকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানান তারা।

নরসিংদী-৩ :শিবপুরের এ আসনে বর্তমান সাংসদ সিরাজুল ইসলাম মোল্লাকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবিতে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। তবে তিনি নেতাকর্মীদের ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছেন।

নেত্রকোনা-১ :দুর্গাপুর-কলমাকান্দার এ আসনে সাবেক এমপি মোশতাক আহমেদ রুহীকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবিতে তার সমর্থকরা কলমাকান্দায় বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। এ সময় নির্বাচনী আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগে ছয়জনকে আটক করে পুলিশ। এবার এখানে মনোনয়ন পেয়েছেন মানু মজুমদার।

প্রসঙ্গত, শরিকদের জন্য ৭০ আসন হাতে রেখে গত রোববার আওয়ামী লীগ ২৩০ আসনে প্রার্থী ঘোষণা করেছে। যার মধ্যে বেশিরভাগই বর্তমান এমপি। এবার এ দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন ৪ হাজারের ওপর। ফলে মনোনয়নবঞ্চিতের সংখ্যাও এবার যে কোনোবারের চেয়ে বেশি।

Print Friendly, PDF & Email