Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

৩১ মার্চের মধ্যে আবারও নির্বাচন চাইলেন ভিপি নুর

আপডেটঃ 6:37 pm | March 13, 2019

বাহাদুর ডেস্ক :

তিনদিনের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন বাতিল করে ৩১ মার্চের মধ্যে ফের নির্বাচন দাবি করেছেন নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর। আগে ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদক পদ ছাড়া ২৩ পদে ভোট দাবি করলেও এবার সব পদেই পুনঃর্নির্বাচন দাবি করেছেন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণের এই নেতা।

বুধবার বেলা তিনটার দিকে হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে তিনিসহ ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কার্যালয়ে গিয়ে আগামী শনিবারের মধ্যে ডাকসুর ‌প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন বাতিল চেয়ে স্মারকলিপি দেন।

বেরিয়ে এসে নুরুল হক নুর বলেন, ‘শত কারচুপির পরও আমাকে এবং সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেনকে হারাতে পারেনি। তবে আমাদের প্যানেলের অন্যদের হারিয়ে দিতে পেরেছে তারা নীলনকশা করে। এখন আমরা দেখছি যে ছাত্রলীগ বাদে অন্য সব সংগঠন পুনঃর্নির্বাচন চাইছে এবং সে লক্ষ্যে তারা আন্দোলন করছে।

নির্বাচন বাতিলে তিন দিনের আল্টিমেটাম সম্পর্কে ভিসি বলেন, ‌ডাকসুতে পুননির্বাচন দাবিতে আজ ভিসি স্যারকে তিন দিনের আল্টিমেটাম দেয়া হয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে। আমি তাদের প্রতিনিধি হিসেবে, এত কারচুপির মধ্যেও আমি সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভোটে ডাকসুর ভিপি হয়েছি।আমি শিক্ষার্থীদের নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে তাদের (ভোট বর্জনকারী ৫ প্যানেল) দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করছি। আমিও চাই, প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন বাতিল করে ৩১ মার্চের মধ্যেই পুন:নির্বাচন দিতে হবে।

ডাকসু ভোটের দিন সোমবার রোকেয়া হলে নিজের ওপর হামলার বিষয়েও কথা বলেন নুরুল হক। বলেন, ‘রোকেয়া হলের প্রভোষ্ট জিনাত হুদা ছাত্রলীগের সভাপতি-সেক্রেটারীকে ফোন দেন এবং তারা আমার ওপর হামলা চালিয়েছিল। তাদের লেডি মাস্টার বাহিনী রয়েছে, শোভন ভাইয়ের নেতৃত্বে তারা আমার ওপর হামলা চালিয়েছিল।’

বুধবার দুপুর ২টার দিকে তারা উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামানের সঙ্গে দেখা করে এ দাবি জানান নুরের নেতৃত্বে ১১ সদস্যে প্রতিনিধি দল।এই প্রতিনিধি দলে ছিলেন ডাকসু নির্বাচন বর্জন করা ৫ প্যানেলের নেতারা। এসময় তারা ডাকসু নির্বাচন বাতিল ও পুনর্নির্বাচন দাবিতে উপাচার্যকে স্মারকলিপিও দেন।

এর আগে আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে ভিসির কার্যালয়ের সামনে এক বক্তৃতায় কোটা আন্দোলনের নেতা ও ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, ব্যাপক কারচুরির পরও ডাকসুর ২৫টি পদের মধ্যে দুটি পদে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদকে হারাতে পারেনি ছাত্রলীগ। আপনাদের ভোটে আমি ভিপি নির্বাচিত হয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও ছাত্রলীগ মিলে আমার জয় আটকাতে পারেনি।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভোটে নির্বাচিত একজন প্রতিনিধি হিসেবে আমি বলছি, আমি সাধারণ শিক্ষার্থী ও নির্বাচন বর্জনকারীদের সঙ্গে একমত। আমি ডাকসু নির্বাচন বাতিল করে পুনঃনির্বাচন দাবি করছি।

দীর্ঘ ২৮ বছর পর ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে ২৫টি পদের মধ্যে দুটি ছাড়া সব পদে জয় পায় ছাত্রলীগ। ভোটের দিনই নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলে ভোট বর্জন করে ছাত্রলীগ ছাড়া সব প্যানেল। এরা হলো- ছাত্রদল, বামজোট, ইসলামী আন্দোলন, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জোট ও সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। এর পর থেকে তারা পুনর্নির্বাচন দাবিতে বিক্ষোভ করছে।

//টি.কে/ওয়েভ-ইন//

Print Friendly, PDF & Email