Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

সংঘর্ষ কারচুপি বর্জনেও ইসি সচিবের সন্তোষ প্রকাশ

আপডেটঃ 10:52 pm | March 24, 2019

বাহাদুর ডেস্ক :

উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপেও ভোটারদের দেখা মেলেনি। প্রথম দুই ধাপের তুলনায় ভোটার উপস্থিতি এবার আরও কমেছে। আগের দুই ধাপ দৃশ্যত শান্তিপূর্ণ থাকলেও তৃতীয় ধাপে সংর্ঘষ, বর্জন, অনিয়ম ও কারচুপির ব্যাপক অভিযোগ পাওয়া গেছে। যদিও ভোট শেষে রোববার বিকেলে নির্বাচন ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে নির্বাচন নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে।

রোববার সারাদেশের ২৫ জেলার ১১৭টি উপজেলায় ভোট নেওয়া হয়। ইসির নানা হুমকি-ধামকি উপক্ষো করে ভোটের আগের রাতে সিল মারা ব্যালট দিয়ে বাক্স ভরিয়ে ফেলার ঘটনা ঘটেছে। বিভিন্ন কেন্দ্রে গোলাগুলির ঘটনাও ঘটেছে। সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। যার মধ্যে সাধারণ ভোটারও রয়েছেন। চট্টগ্রামের চন্দনাইশে ভোট জালিয়াতি রুখতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এক পুলিশ সদস্য। আগের রাতে ব্যালট ভরার অভিযোগে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার ভোট স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে। ভোট জালিয়াতিতে যুক্ত থাকার দায়ে জেলার একজন এএসপি এবং ওসিকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

কক্সবাজারের পেকুয়ায় দুই পক্ষের গোলাগুলিতে তিনজন আহত হয়েছেন। বিবদমান দুই পক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে গুলিবর্ষণের অভিযোগ এনেছে। এছাড়াও ভোট শুরুর পরপরই একাধিক স্থানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, তৃতীয় ধাপের ভোট মোটোমুটি ভালো হয়েছে। নির্বাচন কমিশন ভোটে মোটামুটি সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

প্রথম ধাপের তুলনায় দ্বিতীয় ধাপে ভোটার উপস্থিতি কম হওয়া এবং তৃতীয় ধাপে ভোট কেন্দ্রগুলো ভোটার শুন্য হওয়ার প্রসঙ্গে ইসি সচিব বলেন, উপজেলা নির্বাচনে ভোটের হার নিয়ে কমিশনের কোন মাথাব্যথ্যা নেই। ‘পার্সেন্টেজ ইজ নট ম্যাটার। শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে কি-না এটাই বিষয়।’ তিনি বলেন, ‘একটি জোট নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেনি। তাদের সমর্থকতো রয়েছে। তারাতো ভোট কেন্দ্রে আসেনি। আবার তাদের পক্ষ থেকে ভোট কেন্দ্রে না আসার জন্য প্রচারও রয়েছে। এসব আপনাদের খেয়াল রাখতে হবে।’

নির্বাচন পরিস্থিতি বর্ণনা দিতে গিয়ে হেলালউদ্দীন বলেন, অনিয়মের কারণে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার ভোট বন্ধ করা হয়েছে। সেখানে দায়িত্বে থাকা এএসপি ও ওই থানার ওসিকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আরও কেউ এর সঙ্গে জড়িত হলে তাদেরকেও বিচারের আওতায় আনা হবে। তিনি জানান, অনিয়মের কারণে এ ধাপে মোট ৯ হাজার ২৯৮টি কেন্দ্রের মধ্যে ১৪টি কেন্দ্রের ভোট বন্ধ করা হয়েছে।

ইসি সচিব বলেন, চট্টগ্রামের চন্দনাইশে দুইপক্ষের সংঘর্ষে একজন পুলিশ কনস্টেবল গুলিতে আহত হয়েছেন। তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে হেলিকপ্টারে করে ঢাকার হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, ইসির যুগ্ম-সচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান ও এসএম আসাদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

এবারের উপজেলা নির্বাচন দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হলেও অধিকাংশ রাজনৈতিক দল নির্বাচন কমিশনের ওপর অনাস্থা জানিয়ে নির্বাচনে অংশ নেওয়া থেকে বিরত রয়েছে। ফলে নির্বাচন প্রায় একতরফা হয়ে পড়েছে। তিন ধাপে ভোটের আগেই ৭১টি উপজেলার চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় বিজয়ী হয়েছেন।

//টি.কে/ওয়েভ-ইন//

Print Friendly, PDF & Email