Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

সমাজ, সামাজিকতা ও আমি || ইমন সরকার

আপডেটঃ 12:05 am | May 12, 2019

দিন যায় পৃথিবী আমার কাছে চেনা থেকে আরও অচেনা হয়ে উঠে। অচেনা হয় আমার চারপাশ অহর্নিশ। সামান্য হিস্যা মেলাতে মেলাতে বহুদূর চলে যায় সম্পর্কের মূল্যবোধ। আজ আপনার সুবিধা আমি মানছিনা তো আমি খারাপ, কাল আমি পাচ্ছিনা তো আপনি খারাপ। এর মাঝেই যারা নরম, শরম যাদের সভ্যতা তারা সবসময় কোনঠাসা।

ছোটবেলা ঠাকুমার মুখে শুনতাম – শয়তানের পাল্লা ভাড়ি হয়। প্রকৃতিগতভাবেই দুনিয়ায় বহু ধরনের লোক। আমার এক স্যার বলতেন – দুনিয়ায় কিছু শয়তান জন্মায় আর তারা ছলে বলে অন্যদের উপর ভর করে তাদেরও শয়তান বানিয়ে দেয়। আমি প্রকৃতির এই কঠিন নিয়মের কাছে হেরে যাই। মানুষকে বড্ড মানুষের চোখে দেখার ইচ্ছা ছিল আমার। অন্তরে এক লালন করে উপরে অন্য কথা বলা মানুষগুলোর জীবনে কি মর্যাদা তা আমি জানিনা। জেনে বুঝে শয়তানির সাথে তাল দেয়ার অর্থও আমার জানা নাই। আমি বড় বেমানান এসব হিসেবী আদবকেতায়।

একজন বাড়ির পাশে দাঁড়িয়ে যাচ্ছে তো পাশের জন হিংসায় পেট ফুলে গ্যাসপাম্প হয়ে যাচ্ছে। কেন এসব? যেভাবেই হোক চলার পথে কাটা হওয়ার প্রবনতা বহু মানুষের। আমরা কেমন অদ্ভুত প্রাণি তা আমি নিয়ত আবিস্কার করছি। আমার এক বন্ধু বলছে আমাকে – তোকে তো অমুক তমুক লোক দেখতে পারেনা! আমি হাসলাম এই বলে যে – যার দেখার অসুবিধা সেটা তার সীমাবদ্ধতা। আমি আরও বললাম তাদের জিজ্ঞেস করিস কেন দেখতে পারেনা? একটা কারন ও বলতে পারবেনা ওরা! হতে পারে শুধুই তাদের মানসিক অস্থিরতা কেন আমি মিশে যাইনা মাটিতে সেই ভাবনায়।

হিংসা সর্বত্র বিরাজমান। নিজের ঘর, নিজের সংসার, বন্ধু, আত্মীয় স্বজন এর মাঝেই হিংসা বিদ্বেষ বর্তমান সেখানে আশে পাশে চলা মানুষগুলোর মনে হিংসা দানা বাধতেই পারে। সীমাবদ্ধ মন ই পৃথিবীর একমাত্র সমস্যা বলে মনে করি। আমি নিজেও হয়তো এর থেকে মুক্ত নই। অপরের উপকারে সপে দিতে জানি নিজেকে অবিরাম, বন্ধু কে বন্ধু ভাবতে জানি, তবু অজানায় অনেক সীমাবদ্ধতা হয়তো আমারও আছে। আমি তবু এই নোংরা মানুষের পৃথিবী চাইনা। এই বিষাক্ত পৃথিবী ছেড়ে বড্ড বেশি পালাতে চাই, বহুদূর!

লেখক: ইমন সরকার, উদ্যোক্তা ও সমাজকর্মী৷
গৌরীপুর, ময়মনসিংহ৷
Imon.ugdp@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email