Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

খামারী শাহীন কান্নায় ঈদের আনন্দ ম্লান ॥ গৌরীপুরে ডাকপ্লেগে মরলো ৩হাজার ২শ হাঁস

আপডেটঃ 4:03 pm | June 10, 2019

মোস্তাফিজুর রহমান বোরহান :
ময়মনসিংহের গৌরীপুরে উপজেলার সহনাটী ইউনিয়নের ধোপাজাঙ্গালিয়া গ্রামের ডাকপ্লেগে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ৩ হাজার ২শ হাঁসের মৃত্যু হয়েছে। একের পর এক হাঁসের মৃতুতে এবারের ঈদের আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে খামারী শাহীন মিয়ার।
রোববার (৯ জুন/১৯) সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শাহীন মিয়ার খামারে একের পর এক হাঁসের মৃত্যু ঘটচ্ছে। বুকফাটা আর্তনাদ আর নানা ওষুধেও মৃত্যু ঠেকাতে পারছেন না তিনি। শাহীন মিয়া পাত্রাইল গ্রামের আব্দুস সালামের পুত্র।
শাহীন মিয়া জানান, বেসরকারি এনজিও সংস্থা ব্র্যাক ও একটি বাড়ি একটি খামার থেকে ৩৮হাজার টাকা ঋণ নেন। কিন্তু টাকার ঘাটতি হওয়ায় তার বাবা আব্দুস সালাম নিজ নামে বেসরকারি এনজিও ব্র্যাক, আশা ও কৃষি ব্যাংক থেকে আরো ১ লাখ ঋণ তুলে ছেলের খামারে বিনিয়োগ করেন। চলতি বছরের মে মাসে নান্দাইল থেকে ১ লাখ ১২ হাজার টাকা দিয়ে সাড়ে ৩ হাজার হাঁসের বাচ্চা ক্রয় করেন। তিনমাস লালন পালন, ওষুধ ও খাবার বাবদ ২ লাখ টাকা খরচ হয়। ঈদের পর সাড়ে ৩ হাজার হাঁস প্রায় ৫ লাখ টাকায় বিক্রির কথা ছিলো। কিন্তু ঈদের দিন থেকেই খামারে মড়ক দেখা দেয়ায় রোববার পর্যন্ত প্রায় ৩ হাজার ২ শ মারা যায়। মৃত হাঁসগুলো মাটিতে পুতে রাখা হয়েছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা প্রাণীসম্পদক অফিসার ডাঃ আব্দুল করিম বলেন, শনিবার দিন হাসপাতাল বন্ধ ছিলো। হাসপাতালে প্লেগ রোগের ভ্যাকসিন কিছুটা সঙ্কট থাকায় চাহিদা পাঠানো হয়েছে। আমাদের চিকিৎসকদের সাথে পরামর্শ না করা ও নিয়মনীতি না জেনে হাঁস পালন করায় অনেক সময় হাঁস রোগাক্রান্ত হয়ে মারা যায়। তাই ওই খামারির হাঁস প্লেগরোগেই মারা গেছে কিনা পরীক্ষা-নিরিক্ষা না করে বলা যাচ্ছেনা।

টি.কে ওয়েভ-ইন

Print Friendly, PDF & Email