Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

৭১’র শান্তি কমিটির চেয়ারমানের নাতিকে তাঁতী লীগের আহ্বায়ক ॥ কমিটি বাতিলে আ.লীগের ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম

আপডেটঃ 10:13 pm | July 06, 2019

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
৭১’র শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান প্রয়াত আব্দুল হামিদ এমপি’র নাতী জোবায়ের হোসেন সোহান ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর তাঁতী লীগের আহ্বায়ক! এ কমিটি বাতিলের দাবিতে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ২৪ঘন্টার আল্টিমেটাম দেন। শনিবার (৬জুলাই/১৯) গৌরীপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিধু ভূষণ দাস।

তিনি বলেন, পৌর তাঁতীলীগের আহ্বায়ক জোবায়ের হোসেন সোহানের দাদা প্রয়াত আব্দুল হামিদ মুসলিম লীগের এমপি ও ১৯৭১সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় গৌরীপুর উপজেলা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। সোহানের চাচা ডা. মোঃ আব্দুস সেলিম ডক্টর এসোসিয়েশেন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর আসনে বিএনপির প্রাথমিক মনোনয়নপ্রাপ্ত তিনজন প্রার্থীর একজন। ওই নির্বাচনকে সামনে রেখে সোহান বিএনপির হয়ে গণসংযোগ করেন। এই অবস্থায় একজন চিহ্নিত শান্তি কমিটির চেয়ারম্যানের নাতি ও বিএনপি পরিবারের সদস্য সোহানকে তাঁতী লীগের আহ্বায়ক করায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ক্ষোভে ফুসছেন। এ কমিটি আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে। তাই ২৪ঘন্টার মধ্যে এই কমিটি বাতিলের দাবি জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ডা. হেলাল উদ্দিন আহাম্মেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন জুয়েল, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মুন্নাফ, দফতর সম্পাদক অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম মিন্টু, রামগোপালপুর ইউনিয়ন আওয়মী লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম মাস্টার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ উল্লাহ, উপজেলা তাঁতী লীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ আব্দুল লতিফ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আবু সাঈদ, রেজাউল করিম, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোকাম্মেল হক তালুকদার, কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মতিউর রহমান রফিক, ছাত্রলীগ নেতা উমর ফারুক স্বাধীন, তাতীলীগ নেতা শাহ জাহান কবীর প্রমুখ।

এ প্রসঙ্গে জুবায়ের হোসেন সোহান জানান, আমার দাদা যেহেতু একটি দল করতেন, তাঁর ওপর কমিটির দায়িত্ব আসতেই পারে। কিন্তু আমার দাদা এখানকার হিন্দু সম্প্রদায়ের পরিবারকে আশ্রয় ও মুক্তিকামী মানুষের সহযোগিতা করার কারণে উল্টো পাকহানাদার বাহিনী বেঈমান আখ্যায়িত দিয়ে মেরে ফেলতে চেয়েছিলো। আর আমি বিগত নির্বাচনে নৌকা পক্ষের বিজয়ের জন্য কাজ করেছি। কখনও আমি বিএনপি’র সঙ্গে ছিলাম না।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা তাঁতী লীগের আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম বলেন, তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পেলে কমিটি বাতিল করা হবে।
উল্লেখ্য ৫ জুলাই জুবায়ের হোসেন সোহানকে আহ্বায়ক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট গৌরীপুর পৌর শাখা তাঁতী লীগের কমিটি জেলা তাঁতী লীগের আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম ও সদস্য সচিব শেখ মোঃ আমানুল ইসলাম জলিল অনুমোদন করেন।

t.k_9

Print Friendly, PDF & Email