Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

ময়মনসিংহে ডেঙ্গু প্রতিরোধে জেলা পুলিশের সচেতনতামূলক র‌্যালী ও লিফলেট বিতরণ

আপডেটঃ 9:32 pm | August 07, 2019

স্টাফ রিপোর্টার ॥

নিজ আঙিনা পরিস্কার রাখি, সবাই মিলে সুস্থ থাকি’ এই শ্লোগান নিয়ে দেশের অষ্টম বিভাগীয় শহর ময়মনসিংহে জেলা পুলিশ সচেতনতা মূলক র‌্যালী করেছে।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে জেলা পুলিশ লাইনস থেকে সচেতনতা মূলক র‌্যালী পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন উদ্বোধন করেন। ময়মনসিংহ পুলিশের উদ্যোগে বুধবার পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেনের নেতৃত্বে একটি র‌্যালী বের হয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে টাউনহল মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।
এর আগে জেলা পুলিশের উদ্যোগে পুলিশ লাইনসে ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতা সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। র‌্যালী ও সেমিনারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবির, জয়িতা শিল্পী, এস এ নেওয়াজী, কোতোয়ালী পুলিশের ওসি মাহমুদুল ইসলাম, ডিআইওয়ান মোখলেছুর রহমান আকন্দ, ডিবির ওসি শাহ কামাল আকন্দসহ জেলা পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তা, বিভিন্ন ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জগণ অংশ গ্রহন করেন।

র‌্যালী চলাকালে ডেজ্বর ভয়ঙ্কর নয়। এটি একটি ভাইরাস জনিত জ্বর তবে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই, এডিস মশার বৈশিষ্ট্য, চলাফেরার সময়, রোগের লক্ষণ এবং করণীয় সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে আমাদের করনীয় সম্পর্কে নানা তথ্য উপস্থাপন সম্বলিত লিফলেট বিতরণ করেন।

এর আগে পুলিশ সুপার সেমিনারে বলেন, সকল স্থাপনা অফিস আশপাশের ঝোপঝাড় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করতে হবে যাতে দিনের সূর্যালোকে মশা লুকাতে না পারে। মশার বংশবিস্তার প্রতিরোধে জমে থাকা পানির উৎস বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। যে সকল জায়গায় মশা বংশ বিস্তার করে এবং পূর্ণবয়স্ক মশা লুকিয়ে থাকে সেখানে নিয়মিত মশক নিধন কীটনাশকের ¯েপ্র করতে হবে। এডিস মশার লার্ভা ধ্বংসের জন্য পানির পৃষ্ঠের উপর এ কেরোসিন বা অন্য কোন তরল পদার্থ দিয়ে সারফেস ফিল্মিং পদ্ধতি অনুসরণ করলে অক্সিজেনের অভাব এর সকল লার্ভা মারা যাবে। যেহেতু এডিস মশা সূর্যাস্ত এবং সূর্যোদয় এর পূর্বে মানুষকে কামড়ায় তাই উল্লেখিত সময়ে বাইরে না যাওয়াই ভালো তবে কেউ বাইরে থাকলে হাত পা ঢাকা যায় এমন জামা কাপড় সহ প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক ব্যবস্থার আহবান জানান। এছাড়া যে কোন রোগের জরুরি রক্তের প্রয়োজন হলে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীর রক্ত কোনোভাবেই গ্রহণ করা যাবে না।

ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর শরীরে যে নিডল ও সিরিঞ্জ ব্যবহার করা হয়েছে তা কোনোভাবেই অন্য কারো শরীরে ব্যবহার করা যাবে না।
ডেঙ্গু সংক্রামক রোগ নয়, বাতাসের মাধ্যমে ছড়ায় না তাই আতংক ছড়াবেন না। বাচ্চাদের মাতৃদুগ্ধ পান করান এমন কোন মায়ের ডেঙ্গু জ্বর পজিটিভ হলে নির্দিষ্ট সময় বাচ্চাকে মাতৃদুগ্ধ পান না করানো ভাল। পরিবারের কেউ ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে পরিবারের অন্য কারো যাতে না ছড়ায় সেজন্য আক্রান্ত ব্যক্তিকে মশারির ভেতরে রাখতে হবে। ডেঙ্গু ভাইরাসজনিত মশা একজনকে কামড়ে তাকে আক্রান্ত করে পরবর্তী আরেকজনকে কামড়ে আক্রান্ত করতে ৫-৭ দিন সময় লাগে এবং এর মাঝখানের সময় ঐ মশা যদি কাউকে কামড়ায় তার ডেঙ্গু হবে না। ব্যতিক্রম চরিত্রের ডেঙ্গু মশা যাদের রক্তে অধিক গ্লুকোজ এবং আমিষ জাতীয় পদার্থ রয়েছে তাদের রক্ত পছন্দ করে। তাই আপনার খাদ্য গ্রহণে ধর্মসম্মত পরিমিত আহার এ অভ্যস্ত হন।
তিনি আরো বলেন, জরুরী প্রয়োজনে সহায়তা পেতে পুলিশের ৯৯৯ এ ফোন দিন। পুলিশ বাহিনী সকল কাজে আপনাদের পাশে থাকবে।

টি.কে ওয়েভ-ইন

Print Friendly, PDF & Email