Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

বন্যাপরবর্তী রোগব্যাধির প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় ।। সোনাতলায় বিনামূল্যে মেডিক্যাম্পে ৬শতাধিক দরিদ্র মানুষ পেলেন চিকিৎসা ও ওষুধ

আপডেটঃ 9:17 pm | August 25, 2019

সোনাতলা প্রতিনিধি :

‘মাগো, আমার পোলাডার দুইদিন ধরে আগনা, কেমন নাতায়ে গেছে’ এভাবেই ফিরুজা আক্তার তার সন্তানের ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি তুলে ধরেন। চিকিৎসা ক্যাম্পে থাকা স্বেচ্ছাসেবক শিশুটির অবস্থা বিবেচনা করে সামনে নিয়ে যান। জরুরী চিকিৎসা সেবায় ধীরেধীরে সুস্থ্য হয়ে উঠে শিশু সৌরব। এটি বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার পাকুল্লা ইউনিয়ন চিকিৎসা ক্যাম্পের চিত্র।

এমন অসংখ্য মানুষ বন্যাপরবর্তী নানা রোগে আক্রান্ত সঠিক পরামর্শ আর সুচিকিৎসার অভাবে পরিবার পরিজনকে নিয়ে মহাবিপাকে পড়েছেন। সেইসব মানুষের সুস্থ্যতার জন্য এগিয়ে আসে প্রজেক্ট এক টাকায় খাবার, উইমেন্স এম্পাওয়ারমেন্ট অফ বাংলাদেশ (WE), এস.এস.সি-৯৭ এইচ.এস,সি ৯৯ ব্যাচের বন্ধুরা।

একই দিনে সোনাতলা উপজেলার তেকানী চুকাইনগর ইউনিয়নে সুবিধা বঞ্চিত মানুষের সেবায় বিনামূল্যে মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়।দুটি ক্যাম্পে সুবিধাবঞ্চিত ৬৫০জন পান ডাক্তারী পথ্য, ঔষধ,  চিকিৎসা সেবা ও কাউন্সিলিং। বন্যা পরবর্তী পরিস্থিতে রোগ ব্যাধির প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় এই বৃহত মেডিকেল ক্যাম্প আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করেন সোনাতলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শান্ত। তিনি বলেন, আকাশের নিচে খেয়ে-না খেয়ে থাকা মানুষগুলোর আশ্রয় আর খাদ্য যোগানের জন্য চিকিৎসাসেবা প্রাপ্তি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। এই উদ্যোগ দরিদ্রপীড়িত মানুষের জন্য আর্শীবাদ।

দুইটি ইউনিয়নে সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের বিনামূল্যে ঔষধ ও ডাক্তারী সেবা প্রদানে বিশেষ সহায়তা করেন জাতীয় সংসদ সদস্য মান্নান সরকার, বগুড়ার সিভিল সার্জন সামির মিশু, উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো: মিনহাদুজ্জামান, মানিক হোসেন।

প্রজেক্ট এক টাকায় খাবার এর পরিচালক রাফাত নুর মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালনা বিষয়ে বলেন, বন্যার পর রোগ ব্যাধির প্রাদুর্ভাব বেড়ে যায় এবং সুবিধাবঞ্চিত মানুষেরা সচতেনতার অভাবে রোগে আক্রান্ত হয়। তাদের পাশে আমরা আছি, আগামীদিনেও চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

একই সাথে প্রজেক্ট এক টাকায় খাবার এর বগুড়া আঞ্চলিক প্রধান এবং উইমেন্স এম্পাওয়ারমেন্ট অফ বাংলাদেশের (WE) প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক উম্মে ফাতিমা লিসা প্রোগ্রামের সার্বিক সমন্বয় করেন। তিনি বলেন, কেবল বন্যা চলাকালীন সময় নয়, সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের জন্য নিয়মিত ভাবে মেডিকেল ক্যাম্প কর্মসুচীর মাধ্যমে আমাদের দেশে স্বাস্থ সচেতনতা বৃদ্ধি করা সহজ।

Print Friendly, PDF & Email