Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

রাশিয়ায় মোদি, লন্ডনে বিক্ষোভ, আবার বৈঠকও

আপডেটঃ 6:26 pm | September 04, 2019

বাহাদুর ডেস্ক :

দুদিনের রাশিয়া সফরে বুধবার সকালে ভ্লাদিভসটক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এটি প্রধানমন্ত্রী মোদির রাশিয়ার সঙ্গে তৃতীয় দ্বিপাক্ষিক বৈঠক। আগামী দুদিনে তিনি দেখা করবেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে। এছাড়াও অংশ নেবেন ইস্টার্ন ইকনমিক ফোরামে, যেখানে কথা হবে বিশ্বের প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গেও।

ভ্লাদিভসটক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অফ অনার দিয়ে স্বাগত জানানো হয়। ভারতের বিদেশ মন্ত্রক থেকে টুইট করে জানানো হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীকে সাদর অভ্যর্থনা জানানো হয়েছে বিমানবন্দরে।

মঙ্গলবার রাশিয়া যাওয়ার আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, এই সফরে তিনি রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন। জোর দেওয়া হবে দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো দৃঢ় করায়। এছাড়াও পুতিনের সঙ্গে ২০তম ভারত-রাশিয়া বার্ষিক সামিটেও উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই প্রথম ভারতের কোনো প্রধানমন্ত্রী সফর করলেন রাশিয়ার ফার ইস্ট রিজিয়নে।

এর মধ্যেই ১৫ আগস্টের পর ফের লন্ডনে ভারতীয় দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছে ব্রিটিশ-পাকিস্তানিরা। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের বিরোধিতা করে হওয়া বিক্ষোভে ভেঙেছে হাইকমিশনের জানালার কাচ। এ নিয়ে ব্রিটিশ সরকারের কাছে তীব্র প্রতিবাদ করেছে ভারত। মঙ্গলবার ব্রিটেনের বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রায় হাজার দশেক ব্রিটিশ পাকিস্তানি এসে জড়ো হন ভারতীয় দূতাবাসের সামনে। কর্মসূচির নাম দেওয়া হয়েছিল কাশ্মীর ফ্রিডম মার্চ। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের পতাকা হাতে বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দিতে থাকেন—ইউ ওয়ান্ট ফ্রিডম, স্টপ সেলিং ইন কাশ্মীর।

অভিযোগ, ভারতীয় দূতাবাসকে লক্ষ্য করে ডিম, টমেটো, জুতো, পাথর, স্মোক বোমা ছুড়ে একাধিক জানালার কাচ ভেঙে দেয় বিক্ষোভকারীরা। সেই ছবি ট্যুইট করেছে ভারতীয় দূতাবাস। লন্ডনের মেয়র সাদিক খান নিজেও একজন পাক বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ। এই ঘটনার নিন্দা করেছেন তিনিও। এক ট্যুইটে লন্ডনের মেয়র সাকিব খান লিখেছেন, এই ধরনের আচরণ মেনে নেওয়া যায় না, এর নিন্দা করছেন। এদিকে মঙ্গলবারের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় দূতাবাসের তরফে এক টুইটে বলা হয়েছে, দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভে দূতাবাস চত্বরের ক্ষতি করা হয়েছে।

অন্যদিকে কারতারপুর করিডোর নিয়ে আটারিতে আজ কথা হবে ভারত ও পাকিস্তানের উচ্চ পদস্থ অফিসারদের। ই করিডোর নিয়ে দুই দেশের মধ্যে যে খসড়া চুক্তি তৈরি হয়েছিল, তাতে কিছু ফাঁক থেকে গিয়েছে, সেই সমস্যা সমাধানেই হচ্ছে এই বৈঠক। যুগ্ম সচিব পদে কর্তব্যরত দুই দেশের অফিসারদের মধ্যে এই নিয়ে তৃতীয়বার বৈঠক হতে চলেছে। ভারতীয় তীর্থযাত্রীরা যাতে নির্বিঘ্নে কারতারপুরের দরবার সাহিব গুরুদ্বারে যেতে পারেন তারই চূড়ান্ত নিয়ম স্থির হবে এই বৈঠকে।

এর আগে ৩০ আগগস্ট আন্তর্জাতিক সীমান্তের জিরো পয়েন্টে দুই দেশের অফিসারদের মধ্যে আলোচনা হয়েছিল তীর্থযাত্রীদের জন্যে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো তৈরি করা নিয়ে। আজকের বৈঠকে সেই ব্যবস্থা নিয়েও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেই জানা গিয়েছে। এই করিডোরের মাধ্যমে যুক্ত হবে ভারতের গুরদাসপুর জেলা এবং পাকিস্তানের কারতারপুরে অবস্থিত দরবার সাহিব গুরুদ্বার। শিখ ধর্মাবলম্বীরা যাতে দরবার সাহিবে যেতে পারেন গুরু নানকের ৫৫০তম জন্মবার্ষিকীতে কোনো ভিসা ছাড়াই, তার জন্যেই এই আয়োজন করা হয়েছে দুই দেশের তরফে।

জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পর ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে যে তিক্ততা বেড়েছে, তার জন্যে যাতে কারতারপুর করিডোর চালু হওয়ায় কোনো বাধা তৈরি না হয়—সেদিকে বিশেষ নজর দিচ্ছেন দুদেশের অফিসাররা।

টি.কে ওয়েভ-ইন

Print Friendly, PDF & Email