Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

বাগদাদির আস্তানায় হামলার প্রথম ভিডিও প্রকাশ করল যুক্তরাষ্ট্র

আপডেটঃ 9:38 pm | October 31, 2019

বাহাদুর  ডেস্ক :

উত্তর সিরিয়ার যে এলাকায় পালিয়ে ছিলেন আইএস প্রধান আবু বকর আল-বাগদাদি সেখানে অভিযান চালিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা কীভাবে তাকে হত্যা করেছে তার প্রথম ভিডিও প্রকাশ করেছে দেশটির সেনাবাহিনী।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, যে আস্তানায় বাগদাদি লুকিয়েছিলেন সেই বাড়ির চত্বরে ঢোকার পথ পরিষ্কার করতে সৈন্যরা জঙ্গিদের লক্ষ্য করে গুলি চালাতে চালাতে চত্বরের দিকে এগোচ্ছে।

আল-বাগদাদি অভিযানের মুখে পালিয়ে একটি সুড়ঙ্গে আশ্রয় নেন এবং পরে তার আত্মঘাতী ভেস্টে বিস্ফোরণ ঘটান যার কারণে তার মৃত্যু ঘটে।

মার্কিনি বাহিনীর হানার পর ঐ চত্বরটি বিমান থেকে বোমা ফেলে ধ্বংস করে ফেলা হয়, যেখানে গোলাবারুদ মজুত ছিল।

যুক্তরাষ্ট্রে সেন্ট্রাল কমাণ্ডের প্রধান, জেনারেল কেনেথ ম্যাকেঞ্জি বলেন, সেখানে ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত করে দেয়ার পর এলাকাটি দেখে মনে হয়েছে সেটি ‌’বড় বড় গর্তে ভরা একটি গাড়ি পার্ক করার বিশাল খালি জায়গা।’

জেনারেল ম্যাকেঞ্জি বলেন, সুড়ঙ্গের ভেতর আল-বাগদাদির সঙ্গে মারা যায় দুটি শিশু। এর আগে বলা হয়েছিল সুড়ঙ্গের ভেতর আল-বাগদাদি তিনটি শিশুকে নিয়ে ঢুকেছিলেন। তারা তিনজনই বিস্ফোরণে বাগদাদির সঙ্গে মারা গেছে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প রোববার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, অভিযানের সময় বাগদাদি কাঁদছিলেন, কাতরাচ্ছিলেন- সেটা সঠিক কিনা তা জেনারেল ম্যাকেঞ্জি নিশ্চিত করতে পারেননি।

সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেছিলেন, বাগদাদি দুটো বাচ্চাকে নিয়ে হামাগুড়ি দিয়ে একটা সুড়ঙ্গের ভেতরে ঢোকেন এবং তার সঙ্গী-সাথীদের চত্বরে ফেলে রেখে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে নিজেকে উড়িয়ে দেন। এর থেকেই আপনারা বুঝে নিতে পারেন তিনি কোন ধরনের মানুষ।

জেনারেল ম্যাকেঞ্জি আরও বলেন, চারজন মহিলা যারা আত্মঘাতী ভেস্ট পরেছিলেন, তারা এবং আরও একজন পুরুষ ওই চত্বরে নিহত হয়েছেন।

তিনি বলেন, আল-বাগদাদির দেহাবশেষ পরিচয় শনাক্ত করার জন্য একটি বিশেষভাবে তৈরি ঘাঁটিতে বিমানযোগে নিয়ে যাওয়া হয়। সশস্ত্র সংঘাতে নিহতদের অন্ত্যেষ্টি বিষয়ক আইন অনুযায়ী তার মৃত্যুর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে সমুদ্রে দাফন করা হয়।

সূত্র: বিবিসি।

টি.কে ওয়েভ-ইন

Print Friendly, PDF & Email