Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

কালোমুখো হনুমান

আপডেটঃ 3:05 pm | March 13, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক :

উপজেলার চৌরাস্তা এলাকায় গত ১৫ দিন ধরে একটি হনুমান ঘুরে বেড়াচ্ছে এমন খবর ছিল। কিন্তু হনুমানটির সঠিক অবস্থান কেউ নিশ্চিত করতে পারছিল না। গত দুই দিন ধরে পূর্ব বারুই গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত ভূমি কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন ভূঁইয়ার বাসার আশপাশে ও ছাদে অবস্থান করছিল কালোমুখো হনুমানটি। গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে খাবারের জন্য ছোটাছুটি করা হনুমানটি দেখে অনেকে ভয় পেয়ে যান। ওই অবস্থায় হনুমানটিকে মেরে ফেলার জন্য গত শনিবার গ্রামের কিছু লোক জড়ো হয়। কিন্তু উপজেলার চণ্ডীপাশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গ্রামের বাসিন্দা দুলাল ভুঁইয়া হনুমানটি মারতে বাধা দেন। পরে গত শনিবার সকালে দুলাল ভূঁইয়ার ভাই বাচ্চু ভূঁইয়া বাড়ির পাশের জঙ্গল থেকে ধরে শিকল পরিয়ে রাখেন।

হনুমানটিকে ঘিরে শিশুর ভিড়। বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ আসছেন শিকল পরানো হনুমানটিকে দেখতে। শিকল পরানোর সময় মুখে আঘাত লাগায় রক্ত ঝরছিল হনুমানটির। বাচ্চু ভূঁইয়া বলেন, ‘হনুমানটিকে মেরে ফেলা হতো। কিন্তু তিনি সেটিকে প্রাণে মারতে দেননি। ধরে শিকল পরিয়ে রেখেছেন।’ স্থানীয় সোহাগ মিয়াসহ কয়েকজন বলেন, কলার ট্রাকে চড়ে কয়েক দিন আগে হনুমানটি এলাকায় চলে আসে। এরপর বিভিন্ন বাড়িতে যায় খাবার ও আশ্রয়ের জন্য। কিন্তু মানুষ ভয়ে হনুমানটিকে তারা করে।

যশোরের কেশবপুর ও মনিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় চোখে পড়ে কালোমুখো হনুমানের। বেশ কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে বসবাস করা কালোমুখো হনুমানগুলো বিরল প্রজাতির তালিকায় রয়েছে। এদিকে কালোমুখো হনুমানের খবর স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হাফিজুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা মো. মাজহারুল হককে জানালে শনিবার সন্ধ্যায় হনুমানটি উদ্ধারের ব্যবস্থা করা হয়।

নান্দাইল উপজেলা ভারপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা মো. মাজহারুল হক বলেন, কলার ট্রাকে চড়ে হনুমানটি এখানে এসে থাকতে পারে। হনুমানটি উদ্ধার করে ময়মনসিংহ রেঞ্জের মুক্তাগাছার রসুলপুর বনাঞ্চলের গহীণ অরণ্যে অবমুক্ত করা হয়েছে রোববার সন্ধ্যায়।

Print Friendly, PDF & Email