Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

তুমব্রু সীমান্তে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মাইকিং

আপডেটঃ 5:02 pm | May 19, 2018

বাহাদুর ডেস্ক:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের নো-ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থানকারী রোহিঙ্গাদের সেখান থেকে সরে যেতে আবারো মাইকিং শুরু করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। তুমব্রু খালের পাহাড়ি ঢল থেকে বাঁচতে রোহিঙ্গারা নোম্যান্স ল্যান্ডে নতুন করে মাচান ঘর তৈরি শুরু করার পর মিয়ানমারের সেনাবাহিনী কাঁটাতারের বেড়ার কাছে মাইকিং করছে।

আজ শনিবার সকাল থেকে সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়া ঘেষে সেনা সদস্যদের পাহারার মধ্যেই কয়েক দফা মাইকিং করা হয়। মাইকিংয়ে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সেখান থেকে সরে গিয়ে অন্য জায়গায় আশ্রয় নিতে বলছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

এদিকে সীমান্তে সেনা টহলও বাড়ানো হয়েছে। হঠাৎ করে সেনা টহল ও মাইকিং নিয়ে জিরো লাইনে অবস্থারত রোহিঙ্গারা আতংকের মধ্যে রয়েছে। প্রায় দু মাস বন্ধ থাকার পর মিয়ানমার আবারো নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থানকারী রোহিঙ্গাদের এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য মাইকিং শুরু করেছে। বর্তমানে প্রায় ৫ হাজার রোহিঙ্গা তুমব্রু সীমান্তের নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থান করছে।

এলাকাটি বর্ষার সময়ে তুমব্রু খালের পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সেখানে গত এক সপ্তাহ থেকে নতুন করে মাচান ঘর তৈরির কাজ শুরু করেছে রোহিঙ্গারা। এসব ঘর তৈরিতে সহায়তা করছে ঢাকার কিছু সেচ্ছাসেবী সংগঠন ও বিজিবি। তবে নতুন করে ঘর তৈরির পরই মায়ানমার রোহিঙ্গাদের সরে যেতে মাইকিং করা শুরু করলো।

কক্সবাজার বিজিবির ৩৪ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মজ্ঞুরুল হাসান খান জানান, মিয়ানমার সীমান্ত হতে মাইকিং করা হলেও বিজিবি সতর্কাবস্থায় রয়েছে।

গত আগস্টে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংঘটিত ব্যাপক সহিংসতায় ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। এর মধ্যে প্রায় ১৫ হাজার রোহিঙ্গা আশ্রয় নেয় নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুনধুম তুমব্রু সীমান্তে। অন্যান্য এলাকার রোহিঙ্গাদের কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং শরনার্থী শিবিরে সরিয়ে নেয়া হলেও তুমব্রু সীমান্তের নো ম্যান্স ল্যান্ডে বসবাসকারী ৫ হাজারেও বেশি রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেয়া সম্ভব হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email