Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

গৌরীপুরে ইউপি সদস্যের স্ত্রীর সঙ্গে ভাড়া নিয়ে বাক-বিতণ্ডায় চালককে মারধর

আপডেটঃ 10:55 pm | July 12, 2018

রাকিবুল ইসলাম রাকিব

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে স্ত্রীর সঙ্গে ইজিবাইকের ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডায় সাইফুল ইসলাম নামে এক চালককে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে ‍উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য শামছুল আলমের বিরুদ্ধে। ঘটনার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে গোবিন্দপুর-গৌরীপুর, গোবিন্দপুর-শ্যামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে ইজিবাইক চলাচল বন্ধ রাখে চালকরা।

এসময় ইউপি সদস্যের সমর্থক বাদশাকে মারধর করেছে বিক্ষুব্ধ চালকরা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা) ওই আঞ্চলিক সড়কগুলোতে ইজিবাইক চলাচল বন্ধ রয়েছে।

স্থানীয় ও চালকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার ইউপি সদস্যের স্ত্রী ও তার সন্তান গৌরীপুর থেকে সাইফুল আলমের ইজিবাইকে চড়ে গোবিন্দপুর বাজারে যান। পরে ইউপি সদস্যের স্ত্রী সাথে থাকা সন্তানের ভাড়া না দিয়ে শুধু নিজের ভাড়া দিয়ে চলে যেতে চাইলে চালক সাইফুলের সাথে সন্তানের ভাড়া নিয়ে বাক-বিতণ্ডা হয়। এর কিছুক্ষণ পরেই ওই ইউপি সদস্য শামছুল আলম গোবিন্দপুর ইজিবাইক স্ট্যান্ডে এসে চালক সাইফুলকে মারধর করেন।

এ বিষয়ে চালক সাইফুল ইসলাম বলেন, “গত মঙ্গলবার বিকেলে আলম মেম্বারের স্ত্রী ও সন্তান আমার গাড়িতে চড়ে গৌরীপুর থেকে গোবিন্দপুর আসেন। পরে তিনি নিজের সিট ভাড়ার জন্য ১০ টাকা দিয়ে চলে যেতে চাইলে বাক-বিতণ্ডা হয়। এরপরই মেম্বার সাহেব এসে আমাকে মারধর করেন।”

অটোচালক সমিতির সভাপতি আইনুল হক জানান, চালককে মারধরের ঘটনার দু’দিন অতিক্রম করেছে, কেউ শান্তনা দিতেও আসেনি। তাই ঘটনার বিচারের দাবিতে সকল চালকদের সিদ্ধান্তক্রমেই ইজিবাইক চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে, অভিযুক্ত ইউপি সদস্য শামছুল আলম বলেন, “গাড়ি চালকরা প্রায়ই যাত্রীদের সঙ্গে অশোভন ও অশালীন আচরণ করেন। যেহেতু আমার স্ত্রী ও সন্তানের সাথে খারাপ ব্যবহার করেছিল তাই গাড়ি চালককে একটি থাপ্পর মেরেছিলাম। কিছুক্ষণ পরেই ঘটনার জন্য অনুতপ্ত হয়ে আরো ৪/৫ জন নিয়ে গিয়ে ওই চালককে কাছে ভুল স্বীকার করে ও শান্তনা দিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তি করে দিয়েছিলাম। এরপরে একটি চক্র ঘটনাটিকে নিয়ে খেলায় মেতে উঠেছে।”

এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার আহম্মদ জানান, ঘটনা স্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। নিষ্পত্তির চেষ্টা চলছে। এখন পর্যন্ত কেউ কোনো অভিযোগ দেয়নি।

Print Friendly, PDF & Email