Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ঈদ আনন্দ : শামীমা খানম মীনা

August 11, 2019

 বাহাদুর ডেস্ক :  বছর ঘুরে আকাশ জুড়ে উঠলো ঈদের চাঁদ সেই খুশিতে গরীব ধনী এসো মিলাই হাত। কেউ ছোট আর কেউ বড় নই সকল বিভেদ ভুলে ঈদ আনন্দ ভাগ করে নেই সমান সকলে। রং বেঙরের পরি জামা ঈদগাহে যাই ফিরিনি, পোলাও, জরদা সেমাই সবাই মিলে খাই। টি.কে ওয়েভ-ইন...

ঈদের আনন্দ : অনামিকা সরকার

August 11, 2019

বাহাদুর ডেস্ক : বছর ঘুরে আবার এলো পরম খুশির ঈদ চারিপাশে আলো ঝরায় আকাশের ঐ চাঁদ। ঈদের হাওয়া লাগুক মনে মন ভরে উঠুক নতুন গানে খুশির দিনে সবার মাঝে আকাশের চাঁদ টা নেমে আসুক সবাই সবাইকে ভালো বাসুক কাটুক সকল দুঃখ জরা নাশুক। নতুন জামা,টুপি, আতরগন্ধ সবই আছে তারপরেও যেন নির্বাক স্তব্ধ। ধনী-গরীবের নেই ব্যবধান সবাই সবার একাকার, ঈদের আনন্দ সকলের মাঝে সুখের ভাগীদার। ঈদ করবো আনন্দ করবো সবার মাঝে সুখ বিলাবো মোরা ভুলবো আজি সকল বিবাদ আকাশেতে উঁকি দিচ্ছে আমার ঈদের চাঁদ। টি.কে ওয়েভ-ইন...

সুমনের ঈদ : মোখলেছুর রহমান

August 11, 2019

বাহাদুর ডেস্ক : গরিব মায়ের গরিব ছেলে সুমন নামটি তার দুখী মায়ের হয় না সাধ্য দু:খ মিটাবার। প্রতি বছর আসে যে ঈদ প্রতি বছর যায় ঈদের দিনেও সুমন কভু আনন্দ না পায়। রোজার ঈদে সবাই ছোটে নতুন জামা গায়, এসব দেখে সুমনের আজ বড় কান্না পায়। তার গায়ে নেই নতুন জামা বলে গিয়ে মায়, ছেলের দু:খ দেখে মায়ের পরান কাঁদে হায়। সামনে আসছে কুরবানি ঈদ মনেতে বয় ঝড় কুরবানি যে দিতে হবে এবারের বছর। কুরবানি তার সাধ্যের ওপার হলো না তা পূরণ আশায় তবু বুক বেঁধে রয় হতভাগা সুমন। সবার ঘরে মাংস পোলাও সমুন থাকে চেয়ে. তাই দেখে মা ডাকে খোদায় চোখের জলে নেয়ে। টি.কে ওয়েভ-ইন...

উদাসীন : মোখলেছুর রহমান

August 08, 2019

 বাহাদুর ডেস্ক : গিন্নি সেদিন হঠাৎ বেগে বলল আমায় ভীষণ রেগে তোমার মতো মনোদাসী দেখিনিতো কভু আগে। সংসারে ধ্যান নাই, কোনো কাজে মন নাই।   চিন্তা একটাই, কাব্য আর কবিতাই। বউয়ের কথা শুনে আমি সদা থাকি চুপ, বলুক মনে চায় যতো ওর আমার মনে নাই ক্ষোভ।   আবার সেদিন উঠল চটে বলে, ′এই কি ছিলো আমার ঘটে? ঘরেতে চাল নাই তেল-নুন-লাকড়ি নাই, সন্তানের দুধ নাই- অসুস্থ বাবা-মায়ের এক শিশি অষুধ নাই এটা ওটা কুড়িয়ে আর কতো চলা চাই? আর আমি- বাজারটা গরম তাই নরম যতো সওদা চাই দুর্মূল্যের ভিড়ে কোনো দিকে নাহি চাই, বাড়িতে ফিরে এসে পড়ি শুধু কবিতাই।   পুনরায় বলে বউ- ′আমার কথা শুনে রাখো চললাম আমি বাপের বাড়ি কাব্য নিয়ে তুমি থাকো।   তোমার জ্বালা-যন্ত্রনায় সংসারে টিকা দায়। আমার মতো এমন বউ সংসারে কজন পায়।' এবার বলি লক্ষ্মীসোনা আমায় তুমি করো ক্ষমা সংসার টানো তুমি দিয়ো...

কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর : সাধক অর্পিতা

August 08, 2019

বাহাদুর ডেস্ক : কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তোমার কথা যখন স্বরণে আসে তখন মোর দেহ দোলে, মনে আহা কি আনন্দ জাগে।   তুমি মোর স্বপ্নের আশা ভালবাসা, দিন শেষে যে রাত আসে সে রাতের ভালবাসা।   কি যে শিহরণ জাগে মোর দেহে, প্রতি রাতে স্বপ্নে আসো তুমি আমার কাছে কদম ফুলের সুবাস নিয়ে।   সে সুবাসে হারিয়ে যাই আমি কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তোমার মাঝে।   টি.কে ওয়েভ-ইন...

স্মরণে : অনামিকা সরকার

August 06, 2019

বাহাদুর ডেস্ক হে মহাপুরুষ বিশ্বজ্যোতির্ময় তোমার মহা প্রয়ানে তোমায় স্মরণ করি। তুলে দুই হাত করজোরে রাখি তোমার চরণে প্রনাম শতকোটি। তোমার মাঝে খুঁজে পাই জীবনের অনুভূতি। তুমি শুধু কবি নও, বিশ্বকবি নও তুমি ছবি। তোমার অসংখ্য গান,কবিতা,ছড়া ও গল্পের মাঝে নর নারীরা খুঁজে পায় ভালোবাসা, সুখ-দুঃখ, কষ্ট বিচ্ছদ মন ভরি। গীতাঞ্জলি রচিত তোমার গীতবিতানে আমার মনটা সদাই দোলে অনুভূতির আপনমনে। নয়ন সমুখে তুমি নাই নয়নের মাঝখানে নিয়েছো যে ঠাঁই, আছো তাই--- জীবনের তরে থাকবে আমাদের হৃদয়ে আজ কোন কথা নেই শুধুই নিশ্চুপ বিনম্র শ্রদ্ধা হে বিশ্বকবি তোমায় স্মরণে তোমার মহা প্রয়ানের ৭৮তম দিবসে।   টি.কে ওয়েভ-ইন...

অনসাম্বল থিয়েটারের ৩৫তম প্রযোজনা মড়া নাটকের মঞ্চায়ন

July 30, 2019

মো. রফিকুল ইসলাম: গ্রামের রাস্তায় মৃতের মত পরে আছে কেউ। গ্রামের কৃষক সন্তোষ ও হালিম তাকে দেখতে পায়। একে একে গ্রামবাসী জানতে পারে। প্রগতিশীল যুবক সন্তোষ ও হালিম মড়ার শেষ কৃত্য করার জন্য ব্যবস্থা করে। তাতে বাধ সাধে দুই মোড়ল। মুসলমান সমাজের প্রতিনিধি হায়দার আর হিন্দু প্রতিনিধি বৃন্দাবন। মড়া কে পোড়াবে না কবর দিবে এই নিয়ে হিন্দু -মুসলিম দাঙ্গা র উপক্রম হয়। গ্রামের বাউল পরাণ এসে হাজির হয়। সে জানায় এটা সেই পাগল যে তার গানের সাথে ধেই ধেই করে নাচতো। কিন্ত তার বাড়ি বা জাত কখনো জিজ্ঞেস করেনি। উপায় না দেখে থানা পুলিশে লাশ সমর্পনের প্রস্তুতি নেয়। গ্রামে পুলিশ আসা অমঙ্গলকর। তাই পুলিশ আনা যাবেনা। গ্রামের পুরোত ও সিদ্ধান্ত দিতে পারছে না। নিশ্চিত দাঙ্গা লাগবে তখন পাগলটা লম্বা ঘুম শেষে জেগে উঠে। থুতু ছিটায় দুই কুটিল মোড়লের গায়ে। এমনই জাতের নামে ধর্মীয় সেন্টিমেন্ট নিয়ে...

পুরুষ : অনামিকা সরকার

July 29, 2019

পুরুষ অনামিকা সরকার রূপে নয় গুণে; ভোগে নয় ত্যাগে হৃদয়াঙ্গমে গহীনের শব্দধ্বনি জয়ে যে পুরুষ ডুবুরির মতো খোঁজে ফিরে পরখ করে ভালো লাগার একটু ছোঁয়া সেই পুরুষ। নারীত্বের সৌন্দর্য্যে মগ্নময়ে হাবুডুবু খেয়ে ভক্ষণে রক্ষণে দাসত্বে ভোগত্বে হায়েনার রূপে শুধুই ললনাকে লালন করে জীবনে; নাহি অন্তরজয়ে সে কি পুরুষ! কাপুরুষের চেয়েও ঘৃণ্য সেজন যে। যে পুরুষ চিন্তা-চেতনায় ললনাকে ভাবে শুধু সকাল-সন্ধ্যায় তুমি ভোজনার প্রসাদ হাতে চুড়ি তবে তুমি সংসারী কেননা দিবা-নিশি আমি অধিপতি। হে পুরুষ বদলে নাও সংশয়ের পথটা হৃদয়াঙ্গমে কোমল ছোঁয়ায় খোঁজে ফিরো মন জয়ের ভালোবাসার পরশ পাথরটা যেখানে রমণী খোঁজে পাবে স্বপ্নের ঠিকানা। যে পুরুষ মায়ের কথা ভুলে যায় স্ত্রী’র বাঁকা চোখের চাহনিতে যে পুরুষের কাছে স্ত্রীলোক নিরাপদ নয় সে কখনও পুরুষ ছিলো না, পুরুষও নয়। নারীকে দাসত্ব ও ভোগের মনে...

দুই জগতের দুই সখি : বাপ্পু শাহ্

July 28, 2019

দুই জগতের দুই সখি এক কুঠিরে করে বসবাস, এক সখি দেখতে যেমন কালো অন্য সখি দেখতে খুব আলো।   দুই সখির মধ্যে কালো সখি মোরে বাসে ভাল, আলো সখি বলে মোর অন্তর খুব কালো।   আলো সখি কয় ও সখি কালো তুই তারে বাসিস যদি ভাল তোর কুঠির ছেড়ে চলে যাব।   কালো সখি কয় মোরে সখা মন দিয়ে শোন, মোরে পাইতে হলে আলো সখির মন জুগিয়ে চল।   বাপ্পু শাহ্ কয় মুর্শিদের কৃপায় আর নিজ প্রচেষ্টায় দুই জগতের দুই সখি এখন মোরে বাসে ভাল।   টি.কে ওয়েভ-ইন...

সরল জিজ্ঞাসা : অনামিকা সরকার

July 23, 2019

সরল জিজ্ঞাসা অনামিকা সরকার মেঘ তুমি এমন বিষন্ন কেন? তুমি কার; যে একেলা নিজের আকাশে বিচরণ করে আমি শুধু তার। সূর্য্য তুমি কেন উত্তপ্ত যাদের হৃদয় পুড়ে তাপে আমি তাদের জ্বালায়ে তেজস্বী করবো। চাঁদ কেন তুমি এত নি:স্বার্থ আমি জোছনার স্বার্থে সবাইকে আলো দেই সূর্য্যরে আলোয় আমি আলোকিত। নদী কোথায় ছুটছো স্রোতশিনি হয়ে কোথায় তোমার শেষ ঠিকানা যে পথ হারায় আমার নিশানায় ছুটে চলে আমি তাকে গন্তব্যে পৌঁছাবো। শ্রাবণ; কেন এতো অবিরাম কাঁদো কেঁদে কেঁদে মনকে হালকা করি এ জন্য আমার দু’চোখ শান্ত ফুল তুমি কার জন্য ফোঁটো পুজার ঘরের জন্য প্রিয়জন উপহার আর প্রিয়ার খোপায় গুজে সৌন্দর্য্য বাড়ানোর জন্য। নুপুর তোমার শব্দ ধ্বনি এতো সুন্দর কেন? আমি তো শুধু জলসাঘরে মাতায়োরা করে মাতিয়ে রাখি। ঝাড়বাতি তুমি এতো রঙের ঝিলিকের ঢেউ এজন্য নিশি ফুরালে মনে রাখেনা আমায় কেউ। ঝরাপাড়া তুমি...