Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

| |

ব্রেকিং নিউজঃ

রাশিয়া বিশ্বকাপ জিতবে কে, জানিয়ে দিলো শাহীন

July 13, 2018

বাহাদুর ডেস্ক: চলমান রাশিয়া বিশ্বকাপে ভবিষ্যদ্বাণী করার জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে একটি বিড়ালকে নির্ধারণ করেছিল আয়োজক কর্তৃপক্ষ। গ্রিক পুরাণের বিখ্যাত চরিত্র অ্যাকিলিসের নামে তার নাম, ‘অ্যাকিলিস দ্য ক্যাট’। অবশ্য অ্যাকিলিস ছাড়াও ভবিষ্যদ্বাণী করে এই বিশ্বকাপে আলোচনায় উঠে এসেছে শাহীন নামের একটি উট। গ্রুপ পর্বে তেমন সুবিধা করতে না পারলেও দ্বিতীয় রাউন্ডের আট ম্যাচের মধ্যে ছয়টিতেই সঠিক ভবিষ্যদ্বাণী দিয়েছে শাহিন নামের এই উট। এমনকি দুই সেমিফাইনাল নিয়ে শাহীনের করা ভবিষ্যদ্বাণীও ঠিকঠিক মিলে গেছে। প্রথম সেমিফাইনালে সে বেছে নিয়েছিল ফ্রান্সকে আর দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ক্রোয়েশিয়াকে। এবার পালা ফাইনালের। কে জিতবে বিশ্বকাপ শিরোপা? সেটা নিয়েও ভবিষ্যদ্বাণী করেছে জ্যোতিষী এই উট। শাহীনের মতে, বিশ্বকাপ জিতে ইতিহাস গড়বে ক্রোয়েশিয়া। উটের সামনে দুটি কাঠিতে করে...

কে জিতবেন গোল্ডেন বল

July 13, 2018

বাহাদুর ডেস্ক: বিশ্বকাপ শেষের পথে। আর মাত্র দুইটি ম্যাচ। এরপরই পর্দা নামবে বিশ্বকাপের ২১তম আসরের। এরই মধ্যে দুই ফাইনালিস্ট দল নির্ধারিত হয়ে গেছে। তাদের মধ্যেই যেকোনো একটি দল চ্যাম্পিয়ন হবে। তবে এখনো ফয়সালা হয়নি গোল্ডেন বলের বিষয়টি। কে পাবেন এবারের আসরের গোল্ডেন বল? কার হাতে শোভা পাবে সেটি? আসলে এ বিষয়ে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যায় না। কেবল পরিসংখ্যান ও পারফরম্যান্সের আলোকে আন্দাজ করা যায়। মূলত যে দুইটি দল ফাইনাল খেলে তাদের মধ্যে যদি ভালো কোনো পারফরমার থাকেন তাহলে তার হাতেই ওঠে গোল্ডেন বল। যেমনটা চার বছর আগে লিওনেল মেসির হাতে উঠেছিল। তার আগে উরুগুয়ের হয়ে সেমিফাইনাল পর্যন্ত দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করা ডিয়োগো ফোরলানের হাতে উঠেছিল। ২০০৬ সালে রানার্স-আপ দল ফ্রান্সের জিনেদিন জিদান জিতেছিলেন গোল্ডেন বল। তার আগের আসরে প্রথম কোনো গোলরক্ষক হিসেবে গোল্ডেন...

আজও জমি সংক্রান্ত সৃষ্ট বিরোধ নিষ্পত্তি হয়নি ॥ ১০৮বছরে পা রাখল গৌরীপুর আর.কে. সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়

July 13, 2018

মোঃ রইছ উদ্দিন, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) থেকে : ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহীবিদ্যাপীঠ গৌরীপুর আর.কে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ১০৮তম বর্ষে পা রাখলো। তৎকালীন জমিদার ব্রজেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরী তাঁর পিতা রাজেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরীর নামে ১৯১১সনের এইদিনে ৬হাজার ১৮বর্গফুট আয়তনে এ বিদ্যালয়টি স্থাপন করেন। এ বছরও এসএসসি পরীক্ষায় উপজেলা জিপিএ-৫ ও পাসের হারে প্রথমস্থান অর্জন ও জাতীয় পর্যায়ে আবারও দু’জন স্কাউট প্রেসিডেন্ট অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে। শিক্ষককে সংকটে বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে বলে অভিভাবকদের অভিযোগ। ১৯২০সনে ৯৩৬নং দলিল মূলে এ বিদ্যালয়টির নামে প্রায় ১১একর জমি নিষ্কর ও ক্ষতিপূরণ অযোগ্য ঘোষণায় দলিল সম্পাদন করে দেন। বিদ্যালয়টি ১৯৯১সনে জাতীয়করণ করার পর বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি বিদ্যালয়ের সমুদয় ভূমি সরকারের নামে ৯৭৪২নং দলিলে লিখে দেন। তবে...